সখীপুরে কলেজ ক্যাম্পাসের রাস্তায় নিম্নমানের ইট ব্যবহারে ছাত্রলীগের বাধা!

সখীপুরে কলেজ ক্যাম্পাসের রাস্তায় নিম্নমানের ইট ব্যবহারে ছাত্রলীগের বাধা!

নিজস্ব প্রতিবেদক :টাঙ্গাইলের সখীপুরে কলেজ ছাত্রলীগের বাধায় দুইদিন সড়ক নির্মাণ কাজ বন্ধ থাকার পর আবার শুরু হয়েছে। আজ রোববার পুরাতন ইট তুলে ফেলে নতুন ইট দিয়ে কাজ শুরু করা হয়। গত বৃহস্পতিবার সরকারি মুজিব কলেজ চত্বরে (ক্যাম্পাসে) ৫০০ মিটার সড়ক নির্মাণে পুরনো ও নিম্নমানের ইট ব্যবহার করার অভিযোগে কলেজ ছাত্রলীগ কাজটি বন্ধ করে দেয়।

উপসহকারী প্রকৌশলীর কার্যালয় সূত্র জানায়, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের অর্থায়নে ২০২০-২১ অর্থবছরে সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মেরামত ও সংস্কার প্রকল্পের আওতায় সরকারি মুজিব কলেজ ক্যাম্পাসের ৫০০মিটার সড়ক নির্মাণে ২০ লাখ টাকা বরাদ্দ হয়। রাজেস এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারি সংস্থা দুই সপ্তাহ আগে কাজটি শুরু করে। ওই সড়কে পুরনো ও নিম্নমানের ইট ব্যবহার করার অভিযোগ এনে গত বৃহস্পতিবার সরকারি মুজিব কলেজ ছাত্রলীগের আহ্বায়ক খন্দকার রকিবুল বিজয় সড়ক নির্মাণের কাজ বন্ধ করে দিয়ে তাঁর ফেসবুকে পোস্ট দেন। রোববার দুপুরে ঠিকাদার কলেজ ক্যাম্পাসে এসে পুরাতন ইট তুলে ফেলে নতুন ইট দিয়ে কাজটি পুনরায় শুরু করেন।



সরকারি মুজিব কলেজ ছাত্রলীগের আহ্বায়ক খন্দকার রকিবুল বিজয় যায়যায়দিনকে বলেন, কলেজ ক্যাম্পাসে থাকা কিছু পুরনো ও নিম্নমানের ইট অধ্যক্ষ মহোদয় ওই ঠিকাদারের কাছে বিক্রি করেন। ঠিকাদার সুযোগ বুঝে অধ্যক্ষের কাছ থেকে কেনা ওই নিম্নমানের ইট দিয়ে কাজ শুরু করে। পরে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরে বাধার মুখে ঠিকাদার তাঁর পুরনো ইট সড়ক থেকে তুলে ফেলেন ও নতুন ইট দিয়ে কাজ করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন।

রাজেস এন্টারপ্রাইজ নামের ঠিকাদারি সংস্থার সত্ত্বাধিকারী রাজেস আহমেদ বলেন, অধ্যক্ষের কাছ থেকে যে ইট কেনা হয়েছিল সেগুলো পুরনো হলেও মানে-গুণে খুবই ভালো। অধ্যক্ষের অনুমতি সাপেক্ষেই ওই ইট দিয়েই কাজ শুরু করেছিলাম। যেহেতু কাজে বাধা দেওয়া হয়েছে, তাই আমি পুরনো ও বিতর্কিত ইট তুলে নিয়ে নতুন ১ নম্বর ইট দিয়ে কাজ শুরু করেছি।

সরকারি মুজিব কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. ছদরউদ্দিন আহমদ বলেন, কবে কাজ বন্ধ হলো আর কবে শুরু হয়েছে এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। ঠিকাদার সড়ক নির্মাণে একাধারে কাজ করছেন- এটাই শুধু জানি। ঠিকাদারের কাছে কলেজের পুরনো ইট বিক্রির বিষয়টিও তিনি এড়িয়ে যান।



উপজেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপসহকারী প্রকৌশলী মো. নুরুল ইসলাম বলেন, গত বৃহস্পতিবার ঠিকাদার তাঁকে ফোন করে কাজ বন্ধ করার বিষয়টি জানিয়েছেন। শনিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুরনো ইট তুলে নতুন ইট ব্যবহার করার জন্য ঠিকাদারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, পুরনো ইট হলেও ওই ইটের মান ভালো ছিল।

সাজ্জাত লতিফ
সখীপুর প্রতিনিধি
০৭.০২.২১

Please Share This Post in Your Social Media




প্রধান কার্যালয়ঃ স্কুল মার্কেট,২য় তলা, কচুয়া বাজার,সখীপুর, টাঙ্গাইল। মোবাইলঃ 01518301289; 01708067997 ইমেইলঃ Kachuaonlinenews@gmail.com ©TangailNews24 Is A Part Of KachuaOnlineNews© © All rights reserved © 2021 Tangail News
Design BY NewsTheme