ছেলের নামে ফুটবল টুর্নামেন্ট, খেলোয়াড়দের পেটালেন ইউএনও!

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে ‘রাফসান একাডেমি’ ফুটবল টুর্নামেন্টের খেলায় মাঠে প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের বেধড়ক পেটানোর অভিযোগ উঠেছে ইউএনও শফি উল্লাহ’র বিরুদ্ধে। নিজের ছেলের নামে এই ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন করেছিলেন তিনি।

শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) বিকেল সাড়ে চার টায় দিরাই সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা প্রশাসন দল বনাম উপজেলা বিদ্যুৎ প্রকৌশলী দলের প্রথম রাউন্ডের খেলায় এ সংঘর্ষ হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, খেলা শুরু হওয়ার আগেই উপজেলা প্রশাসন দলে বহিরাগত খেলোয়াড় নিয়ে খেলতে চাইলে প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের আপত্তি ওঠে। এনিয়ে দুই দলের আপত্তি অনাপত্তির মাঝেই খেলা শুরু করেন রেফারি দিরাই সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাফর ইকবাল।



খেলার দ্বিতীয়ার্ধে একটি ফাউল ধরাকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের দিকে মারমুখী হয়ে ওঠেন দিরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শফি উল্লাহ। এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড় কমলেশ দাসকে ধাক্কা দিয়ে মাঠে ফেলে দেন তিনি। এসময় দু’দলের খেলা ফেইসবুক লাইভ পরিচালনা করছিল বিদ্যুৎ অফিসের কর্মচারী নুরুজ্জামান মুকুল।
বিষয়টি ইউএনও দেখে দৌড়ে গিয়ে নুরুজ্জামানের ঘাড় ধরে মারতে মারতে তার মোবাইলটি কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। তবে মোবাইল কেড়ে নিতে না পারায় পুরো ঘটনাটি ফেসবুকের লাইভে চলে যায়। এঘটনার পর খেলা ভেঙে যায় এবং মাঠে দর্শকেরা প্রবেশ করে। ইউএনও’র এমন ব্যবহারে উপস্থিত দর্শকেরা উত্তেজিত হয়ে উঠলে অধিনস্থ কর্মচারীদের নিরাপত্তা বেষ্টনীতে মাঠ ত্যাগ করেন ইউএনও শফি উল্লাহ।
এ ব্যাপারে বক্তব্য নিতে দিরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শফি উল্লার ব্যবহৃত মোবাইলে কল দিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘খেলার মাঠে ভুল বুঝাবুঝি হইছিল, এটা শেষ হয়ে গেছে।’



উপজেলা আবাসিক প্রকৌশলী বিদ্যুৎ হায়দার আলী মজুমদার বলেন, ‘বিচারকের হাত যখন উত্তেজিত হয়ে কারো আঘাত করে, তখন কিছুই বলার থাকে না। আমাদের প্রশাসনের দু’দলের খেলোয়াড়দের মাঝে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাটিতে দর্শকেরা কষ্ট পেয়েছে বেশি।’
মারধরের শিকার খেলোয়াড় কমলেশ দাস বলেন, ‘বহিরাগত খেলোয়াড় নিয়ে প্রতিপক্ষ দল খেলতে চাইলে আমরা বাধা দিলে খেলার শুরু থেকেই তারা মারমুখী হয়ে ওঠেন। খেলার এক পর্যায়ে ইউএনও স্যার আামাদেরকে অন্যায়ভাবে মারধর করতে থাকেন।’
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রেফারি জাফর ইকবালের মোবাইলে বার বার কল দিলেও রিসিভ হয়নি।



উল্লেখ্য, দিরাই উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে ২০ নভেম্বর দিরাই সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে টুর্নামেন্টের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন, রাফসান একাডেমির প্রেসিডেন্ট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের শিশুপুত্র শাহার উল্লাহ রাফসান।
মোট ৯ টি দলের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এই ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হয় উপজেলা প্রশাসন দল ও দিরাই থানা পুলিশ দল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, দিরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সফি উল্লাহ, দিরাই থানার ওসি আশরাফুল ইসলাম, পৌরসভার প্যানেল মেয়র বিশ্বজিৎ রায় প্রমুখ।

(সময় টিভি)

error: Content is protected !!