দুশ্চিন্তায় দিন কাটছে টাঙ্গাইলের তাঁতি-ব্যবসায়ীদের

হতাশা আর দুশ্চিন্তায় দিন কাটছে টাঙ্গাইলের তাঁতি ও ব্যবসায়ীদের। দীর্ঘদিন পর করটিয়া শাড়ি কাপড়ের হাট চালু হলেও দূর-দূরান্তের ক্রেতার দেখা মিলছে না। এতে অবিক্রীত শাড়ি নিয়ে চরম বিপাকে তারা। ক্ষতিগ্রস্ত তাঁতিদের স্বল্প সুদে ঋণ সহায়তা দেয়ার দাবি, হাট সমিতি নেতার।



দীর্ঘদিনের করোনা পরিস্থিতির পর টাঙ্গাইলের করটিয়া শাড়ি কাপড়ের পাইকারি হাট বসতে শুরু করেছে। তবে করোনা আতংকে দেখা মিলছে না দূর-দূরান্তের ক্রেতাদের। ফলে পর্যাপ্ত শাড়ি বিক্রি হচ্ছে না। এ অবস্থায় সরকারি সহায়তা চান তাঁত মালিকরা।



টাঙ্গাইলের করটিয়া কাপড় হাট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. শাহজাহান আনসারী জানান, শাড়ির দাম কমলেও ক্রেতা সমাগম কমে যাওয়ায় লাভ হচ্ছে না। শাড়ির হাট ব্যবসায়ী মালিক সমিতির নেতা, ক্ষতিগ্রস্ত তাঁতিদের স্বল্প সুদে ঋণ সহায়তা দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।



হাট ব্যবসায়ী সমিতির তথ্য মতে, করোনার আগে করটিয়া হাটে সপ্তাহে দুশো কোটি টাকার বেশি কাপড় বিক্রি হতো। এখন বিক্রি হচ্ছে মাত্র ৫০ থেকে ৬০ কোটি টাকার।

(সময় সংবাদ)

error: Content is protected !!