ম্যাজিস্ট্রেটের হানা, বিয়েবাড়ি হয়ে গেল দাদার কুলখানি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার বাদৈর ইউনিয়নের মান্দারপুর গ্রামে বাল্যবিয়ে বন্ধ করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।



উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাসিবা খান কনের বাড়িতে গেলে পরিবারের লোকজন জানান, আলোচিত কনের দাদার কুলখানির আয়োজন করা হয়। পরে অবশ্য কনের পরিবারের লোকজন বিয়ে না দেওয়ার মুচলেকা দেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাসিবা খান জানান, ওই গ্রামের এক প্রবাসীর কন্যার বিয়ের দিন ধার্য ছিল রবিবার। কনে নবম শ্রেণির ছাত্রী হওয়ার বিষয়টি এক সংবাদকর্মীর মাধ্যমে খবর পেয়ে দুপুরে তিনি বিয়েবাড়িতে হাজির হন।



ওই কনের হাতে মেহেদি লাগানো দেখে বিষয়টি তিনি নিশ্চিত হন। তবে পরিবারের লোকজন জানান, আলোচিত ওই কনের দাদার কুলখানি উপলক্ষে খাবারদাবারের আয়োজন করা হয়। নবম শ্রেণি পড়ুয়া ওই মেয়ে এমনিতেই হাতে মেহেদি দেয়। কিন্তু সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় বিয়ে আয়োজনের বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে কনের পরিবারের কাছ থেকে মুচলেকা আদায় করা হয়। এ সময় স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

error: Content is protected !!