ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচন!দেড় ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ২৫ টি

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের একটি কেন্দ্রে ভোট শুরুর পর দেড় ঘণ্টায় ভোট দিয়েছেন মাত্র ২৫ জন। এই কেন্দ্রে মোট ভোটার তিন হাজার ২৩৭ জন। ভোট পড়ার হার শূন্য দশমিক ৭৭ শতাংশ।
ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনে আজ শনিবার সকাল ৯ টা থেকে ১৮৭ টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। এই আসনের ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সালাউদ্দিন আহমেদ। নৌকার প্রার্থী কাজী মনিরুল ইসলাম।



যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের তৃতীয় তলায় পুরুষ ভোটার কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিসাইডিং অফিসার মাহমুদুন্নবী প্রথম আলোকে বলেন, ভোট শুরুর পর সকাল সাড়ে দশটা পর্যন্ত তার কেন্দ্রে ২৫ টি ভোট পড়েছে। সকালে ভোটার উপস্থিতি কিছুটা কম ছিল জানিয়ে এই কর্মকর্তা বলেন বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতি বাড়ছে।ভোটকেন্দ্রের পরিবেশ পরিস্থিতি দেখে নৌকার প্রার্থী সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। জয়ের বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তিনি।
তবে ধানের শীষের প্রার্থী সালাউদ্দিন আহমেদের অভিযোগ, কেন্দ্র থেকে তার পোলিং এজেন্টদের বের করে দেওয়া হচ্ছে। সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ধানের শীষের প্রার্থী আরও অভিযোগ করেন, যাতে কোনো ভোটার কেন্দ্রে না আসেন এ জন্য আওয়ামী লীগের লোকজন একটা ত্রাস সৃষ্টি করেছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা কোনো ভূমিকা পালন করছেন না বলে অভিযোগ করেন তিনি।



ভোটের মাঠে থাকবেন কিনা, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের সালাউদ্দিন বলেন, তিনি নির্বাচনের মাঠে থেকে দেখতে চান প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা কী করতে পারেন। এখনো সরকারের বোধোদয় হয়নি। কারচুপি ছাড়া সরকার এবং নির্বাচন কমিশন কিছুই করতে পারছে না। ভোটে অনিয়ম হলে এখান থেকে সরকার পতনের আন্দোলন শুরু হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।
সকাল থেকেই এই কেন্দ্রের সামনে অবস্থান করে দেখা গেছে, নৌকা প্রতীকের ব্যাজ গলায় ঝুলিয়ে শতাধিক লোক কেন্দ্রের সামনে অবস্থান করছেন। ধানের শিষের প্রার্থীর পক্ষে কেন্দ্রের সামনে অবস্থান নিতে কাউকে দেখা যায়নি। কেন্দ্রের ভেতর প্রিসাইডিং অফিসারের কক্ষে একজন করে পুলিশ সদস্য অবস্থান নিয়েছেন। বিজিবি এবং র‌্যাবের সদস্যরা মাঝে-মাঝে টহল দিচ্ছেন।



বিএনপির প্রার্থী সালাউদ্দিন আহমেদ ঢাকা-৪ আসনের ভোটার। এজন্য তিনি প্রার্থী হয়েও নিজের ভোট দিতে পারেননি। আওয়ামী লীগের প্রার্থী জানিয়েছেন, তিনি যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে বিএনপি প্রার্থীর ভাষ্য, আওয়ামী লীগের প্রার্থী মিথ্যাচার করেছেন। তিনি কোনোভাবেই ঢাকা-৫ আসনে ভোট দিতে পারেন না। কারণ তিনি ঢাকা-৪ আসনের ভোটার।



ঢাকা ৫ আসনের মোট ভোটার চার লাখ ৭১ হাজার ১২৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার দুই লাখ ৪১ হাজার ৪৬৪ জন। আর নারী ভোটার দুই লাখ ২৯ হাজার ৪৬৫ জন।
একই ভবনের দোতলায় আরেকটি পুরুষ কেন্দ্র রয়েছে। সেখানে ভোটার এক হাজার ৯৯৮ জন।



দেড় ঘণ্টায় কত ভোট পড়েছে, এই প্রিসাইডিং অফিসার হামিদুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখনো হিসাব করেননি
সকাল ৯ টা ৫০ মিনিটে এই কেন্দ্রে এসেছিলেন বিএনপির প্রার্থী সালাউদ্দিন আহমেদ।
আর সাড়ে নয়টার দিকে ভোটকেন্দ্রে আসেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী কাজী মনিরুল ইসলাম

error: Content is protected !!