টাঙ্গাইলে ৩য় শ্রেণির ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে শিক্ষকক গ্রেপ্তার

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে ৩য় শ্রেণীর ছাত্রীর শ্লীনতাহানির চেষ্টার অভিযোগে ওয়াজেদ আলী খান (৫৫)নামের এক শিক্ষককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয়রা।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে কালিহাতী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।পরে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার দেখানো হয়। গ্রেফতারকৃত ওই শিক্ষক কালিহাতী প্রি-ক্যাডেট স্কুলের পরিচালক।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে,করোনাকালীন সময়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে উপজেলা সদরের দক্ষিণ বেতডোবার কালিহাতী মডেল প্রি-ক্যাডেট স্কুলে মাসিক পরীক্ষা চলাছিল।দুপুর সাড়ে ১২টায় ওই ছাত্রীর পরীক্ষা শেষ হয়।পরীক্ষা আগে শেষ হওয়ায় নিজ কক্ষে ডেকে নিয়ে পরীক্ষার বিষয়ে কথা বলার সময় শরীরের স্পর্শকাতর অংশে হাত দেয় ওই শিক্ষক ।



পরে ছাত্রীটি কান্না করে দৌড়ে বাড়িতে যাওয়ার সময় পথচারী ও স্থানীয় ব্যবসায়ীরা এসে অভিযুক্ত শিক্ষক ওয়াজেদ আলী খানকে গণধুলাই দিয়ে আটক করে রাখে।পরে ওই ছাত্রী বাড়িতে গিয়ে অভিবাবকদের জানালে তারা এসে পুলিশে খবর দিলে বিকাল ৪টায় প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে যায়। সন্ধ্যায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে কালিহাতী থানায় একটি মামলা দায়ের করলে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার দেখানো হয়।

এ ঘটনায় স্থানীয়দের মধ্যে নিন্দা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।অভিযুক্ত ওয়াজেদ আলী খানকে এলাকা থেকে বিতাড়িত করার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা ।ইতিপূর্বেও এরকম একাধিক ঘটনায় জেলহাজতে ছিলেন ওয়াজেদ আলী খান।

এ বিষয় কালিহাতী থানার অফিসার ইনচার্জ সওগাতুল আলম জানান,এ ঘটনায় মেয়ের বাবা বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছে।বুধবার তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়।

error: Content is protected !!