বিস্ফোরনে মসজিদ ধ্বংসস্তুপে পরিণত হলেও অক্ষত রয়েছে আল কোরআন!

(আতিক হাসান) নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় বিস্ফোরিত তল্লা বড় মসজিদে এসিগুলো অ’ক্ষতই রয়েছে। পুড়েছে শুধু এসির ফিল্টারগুলো। মসজিদে তেমন কোনো সরঞ্জাম বা আসবাবপত্র না থাকলেও চূর্ণ হয়েছে জানালার কাচ ও দেয়ালের টাইলস। এছাড়া কোরআন শরীফ ও হাদিসের বইগুলো রয়েছে অ’ক্ষতই।

শনিবার ভোরে সরেজমিনে গিয়ে এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য পাওয়া যায়। স্থানীয় পিয়াস মিয়া বলেন, ম’সজিদের ভিতরে থাকা ৬টি এসির ফিল্টার ও বিদ্যুতের সং’যোগ তার, না’মাজ পড়ার জায়নামাজ, তসবিহ, প্লাস্টিকের চেয়ার পু’ড়ে গেছে। কিন্তু কো’রআন শরীফ ও হা’দিসের বইগুলোর কিছুই হয়নি।

তল্লা এলাকার কাপড় ব্যবসায়ী আবদুল মান্নান বলেন, চেয়ারগুলো পুড়ে গেছে।



দেখলাম পোড়া সেই চেয়ারগুলোতে মুস’ল্লিদের পুড়ে যাওয়া চামড়া লেগে আছে। র’ক্ত জমাট হয়ে ম’সজিদের ভিতরে ও বাহিরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।

এদিকে প্রাথমিকভাবে অনেকেই এটি বি’স্ফোরণের ঘ’টনা হিসেবে উল্লেখ করলেও মূলত তা গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে ঘ’টেছে বলে জানিয়েছে ফা’য়ার সার্ভিস। ম’সজিদটির ভেতরে খোঁ’জ মিলেছে গ্যাস লাইনের অ’সংখ্য লিকেজের।

ফা’য়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক আবদু’ল্লাহ আল আরেফিন গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানান। শুক্রবার রাত পৌনে ৯টায় ওই বি’স্ফোরণের ঘ’টনা ঘ’টে। এতে ইমাম ও মুয়াজ্জিন, ফটো সাংবাদিক, জে’লা প্রশা’সনের একজন কর্মচারীসহ প্রায় ৪৫ জন আ’হত হয়।

error: Content is protected !!