সখীপুরে ২ বাল্যবিয়ের ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যানকে শোকজ

সখীপুরে সপ্তাহের ব্যবধানে নবম শ্রেণির ২ বান্ধবীর বিয়ে” শিরোনামে দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশের অনলাইনে ২৪ আগস্ট সংবাদ প্রকাশ হয়। পরে ওই বাল্যবিয়ের সত্যতা পাওয়া যায়।

দুই বান্ধবীর বাল্যবিয়ে হওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান ও এক গ্রাম পুলিশকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আসমাউল হুসনা লিজা এ নোটিশ দেন। এ সময় উপজেলার কালিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এসএম কামরুল হাসান হারেজ ও গ্রাম পুলিশ নরেন চন্দ্র দাসকে এ নোটিশ দেওয়া হয়।

জানা যায়, উপজেলার কালিয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের বিন্নরীপাড়া গ্রামে গত ১৫ আগস্ট শনিবার এবং ২৩ আগস্ট রবিবার ওই দুটি বাল্যবিয়ে অনুষ্ঠিত হয়। বাল্যবিয়ে দুটির রেজিস্ট্রি করেন পার্শ্ববর্তী ভালুকা উপজেলার উথুরা ইউনিয়ন কাজী আবদুস সালামের ছেলে নূরুজ্জামান।

ইউপি চেয়ারম্যান এসএম কামরুল হাসান হারেজ বলেন, বাল্যবিয়ে ঠেকাতে প্রশাসনের সঙ্গে একযোগে কাজ করছি। কিন্তু কোন কোন অভিভাবক গোপনে অন্য উপজেলার কাজি দিয়ে বাল্যবিয়েরই রেজিস্ট্রি করাচ্ছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আসমাউল হুসনা লিজা বলেন, বাল্যবিয়ের ঘটনায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও গ্রাম পুলিশকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। ইউপি চেয়ারম্যানকে সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্যকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে উপজেলার সকল গ্রাম পুলিশকে সতর্ক করে চিঠি দেওয়া হয়েছে। এর আগে মুজিববর্ষে সখীপুরকে বাল্যবিয়ে শূন্যের কোঠায় আনার ঘোষণা দেওয়া হয়।

(আলোকিত বাংলাদেশ)

error: Content is protected !!