আসুন রাস্তার ফুটপাতে থাকা এইসব রফিকদের পাশে দাঁড়াই—শওকত হোসেন

ছেলেটির নাম রফিক। বয়স ৬ কিংম্বা ৭ হবে হয়তো। তার বাড়ি কুমিল্লার কোম্পানীগন্জে।

সম্প্রতি তার পিতা নইম হোসেন পেশায় রিকশা চালক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যায় ৷

অপর দিকে রফিকের মা আরেকটি বিয়ে করে ছেলেকে ছেড়ে চলে যায়।

অসহায় ছোট রফিকের দায়িত্ব কেউ নেয় না , বাচ্ছাটি একদিন ট্রেনে উঠে বসে ট্রেন চলে আসে চট্রগ্রামে , তারপর রফিক সারাদিন এদিক সেদিক ঘুরে এক পাগলের সাথে জুটে এখন সে ঐ পাগলের সাথেই আছে আজ একমাস যাবৎ ৷

রাস্তায় যে যা দেয় তাই খায় পাগল লোকটি আর রফিক তারা রাস্তার পাশেই থাকে ৷ নেই কোন ঘরবাড়ি, নেই কোন পোশাক পরিচ্ছেদ , নেই কোন পরের দিন খাবারের ব্যাবস্থা ৷ মানুষ যে কতটা অসহায় হয় না দেখলে বোঝার কোন উপায় নেই ৷ অথচ আমরা এই বিপর্যস্ত মানুষগুলোকে ভাইরাল করি না ৷ ভাইরাল করি যত আজেবাজে বিষয় ৷ এই সমস্ত মানুষের জন্য একটি বেওয়ারিশ পুর্নবাসন শুধুই সময়ের দাবি ৷

অসহায় ছোট বাচ্ছাটিকে একবার নিজের বাচ্ছা হিসেবে কল্পনা করুন না ৷

শওকত হোসেন—{ মানবিক পুলিশ ইউনিট সিএমপি }

error: Content is protected !!