নিম্নমানের কাজে বাধা দেওয়ায় প্রকৌশলীকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করলেন ঠিকাদার

নিম্নমানের কাজে বাধা দেওয়ায় রাজশাহী গণপূর্ত কার্যালয়ের উপ-সহকারি প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেনকে (২৮) পিটিয়ে আহত করেছেন এক ঠিকাদার ও তার সহযোগী। পুলিশ এ ঘটনায় হামলাকারী দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে। সোমবার দুপুরে গণপূর্ত বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করা হয়। হামলায় আহত প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় হামলাকারী দুজনকে আসামি করে মামলা করেছেন উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী ইফতেখার আলম। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- ঠিকাদার লিটন এন্টারপ্রাইজের সত্ত্বাধিকারী রাজশাহী মহানগরীর সাধুর মোড় এলাকার বাসিন্দা শাহাবুল মঞ্জুর লিটন এবং তার ম্যানেজার মহানগরীর উপকণ্ঠ চক কাপাসিয়ার বাসিন্দা আতিকুর রহমান।

উপ-সহকারী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন জানান, কোটি টাকা ব্যয়ে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় ভূমি অফিস নির্মাণ কাজ চলছে। রোববার বিকেলে তিনি এ নির্মাণ কাজ পরিদর্শনে যান। এ সময় সেখানে নিম্নমানের ইটের খোয়া দিয়ে ঢালাই কাজ চলছিল। এ ছাড়া কাজের সিডিউলে চার ইঞ্চি ঢালাই দেওয়ার বিষয়টি উল্লেখ থাকলেও দেওয়া হচ্ছিল আড়াই ইঞ্চি। এ সময় তিনি কাজটি বন্ধ করে দেন এবং নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেন।
তিনি আরও জানান, এ ঘটনার জেরে ঠিকাদার লিটন ও তার ম্যানেজার আতিক সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তার অফিস কক্ষে আসেন। এ সময় লিটন নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী সরিয়ে নিতে অস্বীকৃতি জানান। একপর্যায়ে লিটন ও তার সহযোগী হামলা চালান দেলোয়ার হোসেনের ওপর। এ সময় লিটন কাঠের চেয়ার দিয়ে তাকে বেধড়ক পেটান।

এতে তার ডান চোখের ওপরের অংশে আঘাত লেগে গভীর ক্ষতের সৃষ্টি হয়। এ ছাড়া শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে গুরুতর আঘাত রয়েছে। হামলার পর লিটন ও আতিক ভাংচুর চালান। তার কক্ষের চেয়ার, টেবিল, ল্যাপটপ এবং প্রিন্টার ভেঙে ফেলেন।এ ব্যাপারে গণপূর্ত বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী ফেরদৌস শাহনেওয়াজ কান্তা জানান, ঠিাকাদার লিটন ও তার সহযোগী আতিক প্রকৌশলী দেলোয়ারকে মারধর এবং তার কক্ষে ব্যাপক ভাংচুর চালিয়েছেন। পুলিশ, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।
নগরীর রাজপাড়া থানার ওসি শাহাদাত হোসেন খান জানান, ঠিকাদার লিটন ও তার সহযোগী আতিকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

error: Content is protected !!