মির্জাপুরে পাগলা মহিষের শিংয়ের আঘাতে এক ব্যক্তির মৃত্যু


টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে পাগলা মহিষের শিংয়ের আঘাতে গুরুতর আহত খোয়াজ মিয়া (৩৮) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। গ্রামবাসী মহিষটি আটক করে জবাই করার প্রস্তুতি নিলে মালিক ৫০ হাজার টাকা দিয়ে তা ছাড়িয়ে নেন।
সোমবার বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয় বলে তরফপুর ইউপি সদস্য মো. জাহাঙ্গীর আলম নিশ্চিত করেছেন। নিহত খোঁয়াজ মিয়া উপজেলার তরফপুর ইউনিয়নের তরফপুর পূর্বপাড়া গ্রামের নওশের আলীর ছেলে।
জানা গেছে, তরফপুর ইউনিয়নের ছিটমামুদপুর গ্রামের আছর উদ্দিনের ছেলে নজরুল ইসলাম (৪০) গত ২৫ জুন নাটোর থেকে ১০টি মহিষ কিনে ২৭ জুন বিক্রির জন্য উপজেলার বাঁশতৈল ইউনিয়নের কাইতল্যা হাটে তুলেন। বিক্রি না হওয়া চারটি মহিষ নিয়ে সন্ধায় হেঁটে বাড়ি ফেরার পথে একটি মহিষ ছুটে জঙ্গলে ঢুকে যায়। গত রবিবার (২৮ জুন) রাতে মহিষটির সন্ধান পেলেও কেউ কাছে ভিড়তে পারেনি।
সোমবার (২৯ জুন) সকালে তরফপুর গ্রামের নওশের আলীর ছেলে খোয়াজ মিয়া মহিষটি আটকাতে গেলে মহিষটি শিং দিয়ে তার পেটে ও মুখে আঘাত করে গুরুতর আহত করে। আহত অবস্থায় প্রথমে মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেয়া হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সোমবার বিকেলে তার মৃত্যু হয়।
এদিকে গ্রামবাসী মহিষটিকে আটক করে জবাই করে খাওয়ার প্রস্তুতি নিলে ৫০ টাকার বিনিময়ে মহিষের মালিক নজরুল ইসলাম তা ফিরিয়ে নেন জানিয়েছেন।

error: Content is protected !!