ঢাকা থেকে করোনা রোগী পালিয়ে সখীপুরে। আতংকে এলাকাবাসী

রাজধানীর মহাখালীতে অবস্থিত একটি টেক্সটাইল কারখানার শ্রমিক জ্বর, গলাব্যথা ও ঠান্ডা উপসর্গ নিয়ে নমুনা দেন। গত শুক্রবার তার ফলাফল করোনা পজেটিভ আসে। কারখানা কর্তৃপক্ষ তাকে পৃথক একটি কক্ষে আইসোলেশনে রাখেন।
গত সোমবার ওই কর্মী আইসোলেশন থেকে পালিয়ে টাঙ্গাইলের সখীপুর পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের ভাড়া করা বাসায় চলে আসেন। বাড়িতে এসে গতকাল তিনি শশুরবাড়ি বেড়াতে গিয়েছিলেন এমনকি জানা বিকেল বেলা বন্ধুদের সাথে ঘুড়িও উড়িয়েছেন তিনি।

আজ বুধবার সকালে ওই কারখানা থেকে খবর দেওয়া হয় ওই কর্মী করোনা পজেটিভ।
তার ম্যাচ থেকে তিনি পালিয়ে গেছেন। সখীপুর পৌরসভার মেয়র আবু হানিফ আজাদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন ঐ বাড়ি লকডাউন ঘোষণার প্রস্তুতি চলছে। ওই করোনা রোগী জানান চলতি মাসের ৩ জুন তিনি ঢাকার ওই কারখানায় যোগ দেন। গত ১৭ জুন তার গলা ব্যাথা, ঠান্ডা জ্বর অনুভব হলে তিনি ঢাকায় নমুনা দেন।
গত শুক্রবার জানানো হয় আমি করোনা পজিটিভ। সেখান থেকে সোমবার আমি সখীপুর চলে আসি। বর্তমানে আমি আমার বাড়িতে আলাদা কক্ষে আইসোলেশনে আছি। আজ বুধবার কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরিফুল ইসলাম তার করোনা পজিটিভ হওয়ার বিষয়টি তার গ্রামের বাড়িতে জানিয়ে দেন।
তার বন্ধু জানান করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরটি সে সবার সাথে গোপন করে। আমরা এখন সবাই আতংকে আছি।
সখীপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী বাদল জানান আমি তার বাড়ি পরিদর্শন করেছি।
তাকে বাড়ি থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছি।

error: Content is protected !!