ভালুকায় সাব-রেজিস্টার করোনায় আক্রান্ত! আড়াই মাস ধরে জমি রেজিস্ট্রি বন্ধ

ভালুকা প্রতিনিধিঃ
প্রায় আড়াইমাস ধরে ময়মনসিংহের ভালুকা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে জমির রেজিস্ট্রি হচ্ছে না। সাব-রেজিস্ট্রার মো. বোরহান উদ্দিন সরকার করোনা আক্রান্ত হওয়ায় অফিস করছেন না। বিকল্প কেউ এখন পর্যন্ত যোগ দেননি। এতে করে জমি ক্রয় বিক্রয় করতে এসে দাতা ও গ্রহিতারা দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব।
জানা যায়, ভালুকার সাব রেজিস্ট্রার মো. বোরহান উদ্দিন গত ২৩ মার্চ ২০২০ সর্বশেষ অফিস করেন। করোনা ভাইরাসের জন্য দীর্ঘ ৬৬ দিন সাধারণ ছুটির পর সরকারী সকল অফিস আদালত ৩১ মে থেকে কার্যক্রম চালু হলেও ৮ দিনের মাঝে একদিনও তিনি অফিস করেনি। ফলে জমি ক্রয় বিক্রয় করতে এসে সাধারণ মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। সাব রেজিস্ট্রার অফিস না করায় বন্ধ রয়েছে অফিসের সকল কার্যক্রম।
রবিবার সরেজমিনে ভালুকা সাব রেজিস্ট্রি অফিস গিয়ে দেখা যায় অনেকেই জমি ক্রয় বিক্রয় করতে পারছেন না।
জমি রেজিস্ট্রি করতে আসা চানপুর গ্রামের রফিকুল ইসলাম, হামিদুল, আনিসুর রহমান, আলমগীর হোসেন ও বিরুনিয়া গ্রামের মাহবুব আলমসহ একাধিক ব্যক্তি জানান, জমি রেজিস্ট্রি করতে এসে সাব রেজিস্টার না থাকায় রেজিস্ট্রি করতে পারছি না। এক সপ্তাহ যাবত অফিসে এসে ঘুরে যাচ্ছি।
ভালুকা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক সমিতির সাবেক সভাপতি মো. শফিকুল ইসলাম জানান, সাব রেজিস্ট্রার বোরহান উদ্দিন স্যার করোনায় আক্রান্ত হয়েও অফিস করতে চাচ্ছেন। করোনা নিয়ে অফিস করলে আমাদের দলিল লেখকসহ অফিস স্টাফ করোনা ঝুঁকতে থাকবেন। তিনি সুস্থ্য না হওয়া পর্যন্ত অফিস না করাই ভাল।
ভালুকা সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসের দলিল লেখক সমিতির সভাপতি নূরে আলম সিদ্দিকী স্বপন জানান, সাব রেজিস্ট্রার মোঃ বোরহান উদ্দিন সরকার (স্যার) করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাসায় আছেন। এজন্য তিনি অফিস করতে পারছেন না। দীর্ঘদিন সাব রেজিস্ট্রার না থাকায় দলিল রেজিস্ট্রী করতে এসে দাতা গ্রহীতারা হয়রানির শিকার হচ্ছেন।
ভালুকার সাব-রেজিস্ট্রার মো. বোরহান উদ্দিন সরকারের ব্যবহৃত সরকারী মোবাইল নাম্বারসহ ব্যক্তিগত মোবাইল নাম্বারে ফোন দিয়ে রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ কামাল জানান, সাব রেজিস্ট্রার অফিস না করার বিষয়টি আমি খোঁজ নিয়ে দেখছি। তবে করেনা ভাইরাসে আক্রান্ত কিনা তা আমার জানা নেই।
ময়মনসিংহ জেলা রেজিস্ট্রার সরকার লুৎফুল কবীর জানান, গত সপ্তাহে ভালুকার সাব রেজিস্ট্রারের ফোন বন্ধ থাকায় তার সাথে যোগাযোগ করতে পারিনি। রবিবার তিনি অসুস্থ জানিয়েছেন। ভালুকার সাব রেজিস্ট্রার সুস্থ হওয়া পর্যন্ত অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে তারাকান্দার সাব রেজিস্ট্রার উমর ফারুককে ভালুকার সাব রেজিস্ট্রার হিসেবে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তিনি ১০ জুন (বুধবার) থেকে খন্ডকালিন সপ্তাহে ২দিন ভালুকার সাব রেজিস্ট্রার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

(ভালুকার সংবাদ)

error: Content is protected !!