নামের মিল থাকায় টাঙ্গাইলে পাল্টে গেছে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি

নামের মিল থাকায় টাঙ্গাইলে পাল্টে গেছে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি। ১০ দিন ধরে জেলার ধনবাড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক স্বাস্থ্যকর্মীর নাম করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির তালিকায় থাকলে শনিবার (১৬ মে) তার সংশোধনী পাঠিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। বর্তমানে সংশোধিত তালিকায় আক্রান্ত ওই ব্যক্তি হলেন ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোর কিপার।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাইফুর রহমান খান।ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, জেলার ধনবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যকর্মীর সাথে ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোর কিপারের নমুনা গত ৫ এপ্রিল আলাদা আলাদা ভাবে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। তাদের দুজনের নাম একই।

৭ এপ্রিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে তাদেও দুজনেরই ফলাফল আসে। প্রেরিত ফলাফলে ধনবাড়ীর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যকর্মীর করোনা পজিটিভ উল্লেখ করে তালিকা প্রকাশ করা হয়। নিয়ম মোতাবেক তাকে আইসোলেশনে রাখা হয়। লকডাউন করা হয় তার বাড়ি।পরবর্তীতে ১০ দিন পর গতকাল শনিবার ১৬ এপ্রিল রাতে সংশোধিত তালিকা আসে ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। তাতে ধনবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ওই স্বাস্থ্যকর্মীর পরিবর্তে ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোর কিপারের নাম আসে।ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাইফুর রহমান খান বলেন, নাম ও কোড নম্বরের জটিলতার কারনে এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। ধনবাড়ীর ওই স্বাস্থ্যকর্মীকে আইসোলেশন মুক্ত রাখা হয়েছে।

আর ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোর কিপারকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।তিনি জানান, এ ছাড়াও হাসপাতাল ও তার বাড়ির যারা তার সংস্পর্শে এসেছেন তাদের সকলের নমুনা পরীক্ষা করা হবে। এরই মধ্যে সে কোথায় কার সাথে মিশেছে সে বিষয়েও অনুসন্ধান করা হচ্ছে।তিনি আরো জানান, যেহেতু আক্রান্ত ওই স্টোর কিপারের নির্ধারিত ক্রিটিক্যাল পিরিয়ড পার হয়েছে তাই হাসপাতাল লকডাউনের চিন্তা করা হচ্ছে না।

error: Content is protected !!