তবে কী আমরা করোনা প্রতিরোধে ভুল পথে হাঁটছি..?

গতকাল আমাদের জন্য খুব ঐতিহাসিক এবং ভয়ংকর একটা দিন ছিল। গতকাল ১ দিনে সর্বোচ্চ আক্রান্ত ৬৮৮ পাশাপাশি মোট আক্রান্তের সংখ্যা পেরিয়েছে ১০ হাজারের ঘর।

করোনা যখন বেশি মহামারী আকার ধারণ করে সেখানে বিশ্বে যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করেঃ
– আমেরিকা ঘাবড়ে গিয়ে তাদের ইন্টার সিটি চলাচল বন্ধ করে দেয় পুরোপুরি ভাবে।

ব্রিটেন তাদের টিউব ষ্টেশনগুলো বন্ধ করে দেয়।

জার্মানির এক মন্ত্রী সুইসাইড করে কেন তাদের দেশে এতো রোগী পাওয়া যাচ্ছে সেই লজ্জায়।

-ইন্ডিয়া হাসপাতালের পার্শ্ববর্তী ফাইভ স্টার হোটেলগুলো তাদের ডাক্তারদের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়,

কেননা কাজ করতে করতে ক্লান্ত হয়ে গেলে, এখানে এসে ফ্রিতে খাওয়া বা রাতে এসে ঘুমানোর ব্যবস্থা রয়েছে।

সিংগাপুর তাদের একটা এলাকা সম্পূর্ণ লক ডাউন করে শুধু সেখানে তাদের সব রোগীদের আঁটকে ফেলে।

আর আমরা?

আমরা ১০ হাজারতম করোনা পজিটিভ রোগী পেয়েছি সকালে…

এবং ধীরে ধীরে স্বল্প পরিসরে দোকান-শপিং মলগুলো খুলে দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

যদিও দোকান-শপিংমল ৫ তারিখ নাকি ১০ তারিখ থেকে খুলছে এ ব্যাপারে একটু ধোয়াশা ছিল। কিন্তু গতরাতেই এ ব্যাপারে স্পষ্ট নির্দেশনা দেওয়া হয়। নির্দেশনায় বলা হয় দেশের অর্থনৈতিক চিন্তা বিবেচনায় আগামী ১০ মে থেকে স্বল্প পরিসরে দোকান-শপিংমল চালু রাখা যাবে। তবে বিকেল ৪ টার মধ্যে বন্ধের নির্দেশনাও দেওয়া হয়।

এখন কথা হলো যেখানে দেশের মানুষ লজডাউন ই মানছেন না সেখানে স্বল্প পরিসরে দোকান-শপিংমল খোলা এই আইন কতটুকু মানবে বাংলাদেশের মানুষ এটাই এখন দেখার বিষয়।

সংগৃহীত।

error: Content is protected !!