টাঙ্গাইলে শিশু সন্তানকে জিম্মি করে নারীকে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত মান্নান আটক

কালিহাতিতে শিশু সন্তানকে জিম্মি করে এক নারীকে ধর্ষণ, ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে প্রচার
টাঙ্গাইলের কালিহাতিতে এক ব্যবসায়ির (ইলেকট্রনিক্স মেকানিক) বিরুদ্ধে ৫বছর বয়সী ছেলেকে প্রাণে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ছড়ানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত উপজেলার হাসড়া গ্রামের রবি মিয়ার ছেলে ও বর্তমান পাইকড়া ইউপি সদস্য আব্দুল জলিলের চাচাতো ভাই টিভি (ইলেকট্রনিক্স) মেকানিক আব্দুল মান্নান (৪৫)।

নির্যাতিতা নারী (৩৮) জানান, প্রায় এক মাস আগে একদিন সন্ধ্যায় টিউবওয়েলে থালা-বাসন ধোয়ার সময় মান্নান আমার বাড়িতে ঢুকে ৫বছর বয়সী ঘুমন্ত ছেলের ঘরের দরজায় তালা লাগিয়ে আমার ঘরে ঢুকে। শব্দ পেয়ে কে কে বলতে বলতে আমি ঘরে ঢুকলে ছেলেকে প্রাণে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। দীর্ঘ দিন যাবৎ মান্নান আমাকে উক্ত্যত করতো, মান্নানের ছবির সাথে আমার ছবি মিলিয়ে ফেসবুকে ছাড়লে ওর বউ, ভাই ও বাবাকে জানালে তারা শাসন করে এবং আর কখনও কিছু করবেনা বলে জানায়। মান্নানের হুমকি ও সম্মানের ভয়ে বিষয়টি গোপন রাখলেও মান্নান গোপনে ভিডিও করে এখন তা প্রচার করছে। আমি এর কঠিন বিচার চাই।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত মান্নান মুঠোফোনে জানান, আমি কিছু বলতে পারবোনা, সরাসরি আপনার সাথে দেখা করে কথা বলি ! এক প্রশ্নের জবাবে সে বলে ঐ মেয়ে আমার নাতনি হয়, সে হিসাবে ফ্রি ভাবে চলা-ফেরা ও বাড়িতে হঠাৎ হঠাৎ যাতায়াত করতাম। ভিডিওর বিষয়ে সে বলেন, ভিডিও টি কিভাবে কি হয়েছে আমি বলতে পারছিনা।
কালিহাতি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাসান আল-মামুন আমাকে বলেন, ভুক্তভোগি নারীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত আব্দুল মান্নানকে আটক করা হয়েছে। সন্ধ্যার পর বাদি এলে নিয়মিত মামলা দায়ের করা হবে।

মুসলিম উদ্দিন আহমেদ

নিউজটি শেয়ার করুন

error: Content is protected !!